কেন মোবাইল ফোন দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়!

নরমাললি একটা স্মার্টফোন কিনার পর আমরা যদি  তা ৪-৫ বছর খুব ভালো ভাবে ব্যবহার করতে পারি তবে ছোট কিছু ভুলের কারনে ১-২ বছর পর আর সেটা ব্যবহার করতে পারি না। এই ছোট-খাটো ভুল গুলোর কারণে আমাদের শখের স্মার্টফোনটি খুব দ্রুতই নষ্ট হয়ে যায়।

আর কোন ভুলের জন্য আমাদের স্মার্টফোন খুব দ্রুত নষ্ট হয়ে যায় আজকের এই কন্টেন্ট এ সেই বিষয় গুলো নিয়েই আপনাদের সাথে আলোচনা করবো।

তাই চলুন জেনে নেই কেন স্মার্টফোন দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়।

 

1. মোবাইলের স্কিন পানি দিয়ে পরিষ্কার করলে

আপনি যদি আপনার মোবাইল ফোনটিকে দীর্ঘস্থায়ী করতে চান তাহলে অবশ্যই মোবাইলের স্কিন পরিষ্কারের সময় পানি লাগানো থেকে বিরত থাকুন। কারন মোবাইলের সবচেয়ে সফট যেই জিনিসটি সেটি হলো মোবাইলের স্কিন।

তাই কখনোই স্কিন পানি দিয়ে পরিষ্কার করতে যাবেন না। কারন পানি দিয়ে পরিষ্কার করলে আপনার মোবাইলের স্কিনটি খুব দ্রুতই নষ্ট হয়ে যাবে।

স্কিন পরিষ্কারের ক্ষেত্রে যথাসম্ভব শুষ্ক কিছু ব্যবহার করুন। আর শুষ্ক কিছু দিয়ে পরিষ্কারের সময় খুব সাবধানে নরম হাতে করতে হবে যাতে স্কিনে কোনো ধরনের স্পোট না পড়ে।

মোবাইলের স্কিন পরিষ্কার

এতে স্কিনের কোনো ধরনের ক্ষতি হবে না।  এবং মোবাইল ফোনটি দীর্ঘদিন যাবত ব্যবহার করতে পারবেন কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই।

 

2. রাস্তার পাশ থেকে ১০০/২০০ টাকায় কিনা মেমোরি ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন 

অনেক সময়ই আমরা রাস্তার পাশে কম দামে অনেক জীবির মেমোরি বিক্রি করতে দেখি। যা সাধারণত 8GB, 66GB, 58GB হয়ে থাকে। আর এগুলোর দাম সাধারণত ৫০/১০০/২০০ হয়ে থাকে।

যার ফলে আমরা অনকেই এই প্রতারণার ফাঁদে পড়ে মেমোরি গুলো কিনে ফেলি। এই মেমোরি গুলো আমাদের মোবাইলের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। এগুলোর read স্পীড এবং write স্পীড খুবই দৃঢ়।  এছাড়াও আপনি কোনো কিছু কপি করতে চাইলে খুবই ধীর গতিতে সেটি কপি হবে।

আর এই মেমোরি গুলো খুব দ্রুতই নষ্ট হয়ে যায়।  এই জিনিসটি পরীক্ষার জন্য আমিও ১০০ টাকা দিয়ে একটা মেমোরি কিনে ছিলাম যেটা ব্যবহারের ১ মাস পরই নষ্ট হয়ে গেছে।

মেমোরি কার্ড

মেমোরিতে আমরা আমাদের ব্যাক্তিগত অনেক ডাটা সংরক্ষণ করে থাকি আর মেমোরি নষ্ট হওয়ার সাথে সাথে আপনার ডাটা গুলোও হারিয়ে যাবে এছাড়াও এর প্রভাবে মোবাইল নানা ধরনের ভাইরাসের সংক্রমিত হতে পারে।  যার ফলে মোবাইল ফোন দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়।

তাই মোবাইল দীর্ঘদিন ভালো রাখতে এই ধরনের মেমোরি ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন।

3. অপ্রয়োজনীয় Apps ইনস্টল থেকে দূরে থাকুন। 

 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা মোবাইলের চার্জ দীর্ঘস্থায়ী করার জন্য  Battery saver নামের Apps ইনস্টল করে, মোবাইল দ্রুত চার্জ করার জন্য fast charger আবার মোবাইলের Ram বৃদ্ধি করার জন্য Ram booster ইত্যাদি ব্যবহার করে।

প্রকৃত পক্ষে এই অ্যাপ গুলো ব্যবহারে আমাদের ফোনের কোনো ধরনের উপকারই হয় না বরং এগুলো মেক্সিমাম সময়ে ম্যালওয়ার হয়ে থাকে। যেগুলো আমাদের ফোন থেকে গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যাক্তিগত তথ্য গুলো হ্যাক করে আমাদেরকে বিপদের দিকে ঠেলে দেয়।

ব্যাক্তিগত তথ্য চুরি

এছাড়াও এই অ্যাপ গুলো Malware জাতীয় হওয়ায় এগুলো আমাদের মোবাইল ফোনের বিভিন্ন অ্যাপস গুলোতে আক্রমণ করে এবং মোবাইলের গতি কমিয়ে দেয়।  এই অ্যাপস গুলোর প্রভাবে মোবাইল ফোন ধীরে ধীরে অকেজো ও ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে যায়। এগুলো ফোনের ইন্টারনাল মেমোরি দখল করে রাখে ও মোবাইলে বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস ছড়িয়ে থাকে।

Malware সংক্রমণ

তাই এই দরনের অ্যাপস ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন।

4. মোবাইল চার্জে রেখে ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা মোবাইলের চার্জ শেষ হওয়ার সাথে সাথে চার্জার এর সাথে কানেক্ট করে মোবাইল দেখতে থাকে।  এতে করে মোবাইলের ব্যাটারি ফুলে যায়, সেই সাথে ব্যাটারি দীর্ঘ সময় চার্জ ধরে রাখার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

5. কোনো আইডি লগইন করত হলে E-mail দিয়ে করুন

সচরাচর আমরা যখন কোনো ওয়েবসাইট থেকে নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা নিতে যাই তখন আমাদেরকে রেজিস্ট্রার বা লগইন করতে বলা হয় সেক্ষেত্রে ৩ টি অপশন দেওয়া হয়।

Gmail, Facebook অথবা E-mail। আমার আমাদের সুবিধার্থে Facebook বা জিমেইল দিয়ে করে থাকি।  এটি খুবই বিপজ্জনক।  কারন অনেক সময় এগুলো ফিশিং হয়ে থাকে।

যার ফলে আপনার আপনার ফেসবুক বা জিমেইল আইডি অন্যের আওতাধীন চলে যায়।  যার ফলে আপনি ব্যাক্তিগত ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ্য হবেন।

এইক্ষেত্রে আপনি ইমেইল দিয়ে রেজিস্ট্রার বা লগইন করলে কোনো ধরনের ক্ষতি হবে না। এতে আপনার মোবাইলটি দীর্ঘস্থায়ী হবে।

শেষকথা,

আশা করি আমাদের আজকের কন্টেন্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে।  যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের পাশে থাকবেন।

ধন্যবাদ!