মোবাইল দিয়ে ট্রেনের টিকেট বুকিং করার নিয়ম।

বর্তমানে রাস্তায় যথেষ্ট জ্যাম এবং ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য লম্বা লাইনে ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকা সত্যিই অস্বস্তিকর। অনেকেই ছুটিতে বাড়িতে যাবেন, কিন্তু ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য যথেষ্ট সময় না থাকায় আর যাওয়া হয় না।

এই সমস্যা দূর করার জন্য বর্তমানে হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে ট্রেনের টিকেট কাটার ব্যাবস্হা চালু হয়েছে। তাই চলুন জেনে নেই কিভাবে মোবাইল দিয়ে ট্রেনের টিকেট বুকিং করা যায়। অর্থাৎ কিভাবে মোবাইল দিয়ে ট্রেনের টিকেট কাটা যায়।

1. একাউন্ট রেজিষ্ট্রেশন করুন

প্রথমে আপনার স্মার্টফোনটি হাতে নিন। তারপর আপনার মোবাইলের Chrome ব্রাউজারটি ওপেন করুন। Chrome ব্রাউজারটি ওপেন করার পর সার্চ অপশনে গিয়ে লিখবেন www.eticket.railway. gov.bd

এটি লিখে সার্চ করবেন। সার্চ করার পর আপনার মোবাইলে একটি পেজ আসবে।

উল্লেখিত পেজের উপরে ডান পাশে ত্রিবন্ডের একটি বাটন আছে। ঐ বাটনে ক্লিক করুন। এই ত্রিবন্ড বাটনে ক্লিক করলে আপনার সামনে ৫টি অপশন আসবে। সেখান থেকে Register বাটনে ক্লিক করুন। Register বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে একটি ফরম আসবে। 

এই ফরমে আপনি আপনার নাম, জিমেইল, মোবাইল নাম্বার, password, NID অথবা Birth Certificate Number, Post Code এবং সবশেষে Address দিয়ে Sign up করবেন। আপনাকে অবশ্যই সকল তথ্য নির্ভূলভাবে দিতে হবে।

Sign up দেওয়ার পর রেজিষ্ট্রেশন সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।

একটি কথা বলে রাখি, আপনাকে তথ্য লেখার সময় সব ইংরেজিতে লিখতে হবে। কারণ এখনো বাংলা ভার্সন তৈরি হয়নি।

2. মোবাইল ভেরিফাই করুন

রেজিষ্ট্রেশন সম্পূর্ণ হলে আপনার সামনে একটি পেজ আসবে।

সেখানে আপনার কাছে ৬ ডিজিটের একটি verification code চাইবে। যেটি ইতিমধ্যে আপনার দেওয়া ফোন নাম্বারে চলে এসেছে। আপনার মোবাইলে আসা সেই কোডটি দ্রুত অর্থাৎ ৪৫ সেকেন্ডের মধ্যে সঠিকভাবে লিখে নিচে থাকা continue বাটনে ক্লিক করে দিবেন।

continue বাটনে ক্লিক করার পর আপনার একাউন্টটি প্রাথমিক ভাবে  চালু হয়ে যাবে।

3.  একাউন্ট লগইন করুন

ভেরিফিকেশন শেষে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার প্রোফাইলে লগইন হয়ে যাবে। যদি লগইন না হয় কিংবা ভবিষ্যতে যদি আবারও ট্রেনের টিকেট কাটতে চান, তাহলে ১ নম্বরে দেওয়া সেই ৫ টি অপশনের মধ্যে Register এর পরিবর্তে আপনি log in এ ক্লিক করুন।

এবং আগে রেজিষ্ট্রেশন করার সময় যে মোবাইল নাম্বার ও পাসওয়ার্ড দিয়ে ছিলেন, এখানে তা দিয়ে log in করবেন। মনে রাখবেন একটি একাউন্ট দিয়ে আপনি ৪ বার ট্রেনের টিকেট ক্রয় করতে পারবেন।

৪ বারের চেয়ে বেশি বার টিকেট কিনতে চাইলে আপনাকে আরেকটি একাউন্ট Registration করতে হবে।

4. ট্রেন সার্চ করুন

ট্রেনের টিকেট কাটার মূল প্রক্রিয়াটি শুরু হয় এখান থেকেই। লগইন থাকা অবস্থায় আপনাকে হোম পেজে চলে যেতে হবে। সেখানে একটি পেজ থাকবে।

From” ঘরটিতে আপনি যেই স্থান থেকে যাত্রা শুরু করবেন ঐ স্থানের নাম লিখবেন এবং “To” ঘরটিতে আপনি যেই স্থানে যাবেন ঐ স্থানের নাম লিখবেন।

তবে জায়গার নাম দুই শব্দের হলে মাঝখানে আন্ডার স্কোপ ব্যাবহার করতে হবে। যেমন – Dhaka-Cantonment অথবা Biman-Bondor ইত্যাদি। 

তারপর “Date of journey” ঘরটিতে আপনার ভ্রমণের তারিখ নির্ধারণ করবেন। অর্থাৎ আপনি কোন মাসের কোন তারিখে যাবেন সেটা সিলেক্ট করে দিবেন বা লিখে দিবেন।

Choose a class” ঘরটিতে আপনি কোন শ্রেনীতে ভ্রমণ করতে চাচ্ছেন সেটা সিলেক্ট করে দিবেন। বর্তমানে বাংলাদেশে ৮ ধরনের ট্রেনের টিকেট বিক্রি করা হয়।

উল্লেখ্য যে, সবধরনের টিকেট সব ধরনের ট্রেনের জন্য প্রযোজ্য নয়। এছাড়া টিকেট অনুযায়ী ভাড়াও কম বেশি হয়। “Choose class” সহ উপরের সবগুলো ঘর সম্পূর্ণ করার পর নিচে থাকা “Find Ticket” বাটনে ক্লিক করুন।

এরপর আপনি কোন ট্রেনটিতে যাবেন সেটা বাছাই করতে হবে। এই পর্যায়ে আপনার কাছে নিচের মতো একটি পেজ আসবে। এখানে আপনার যাত্রা শুরু করার স্থান থেকে গন্তব্যে যে সকল ট্রেন যায় সবকটিরই বিস্তারিত দেখতে পাবেন।

সেখান থেকে আপনি আপনার পছন্দ মতো এবং আপনার সিলেক্ট করা তারিখ অনুযায়ী একটা ট্রেন সিলেক্ট করে নিচে দেওয়া view seats এ ক্লিক করবেন। view seats এ ক্লিক করার ফলে আপনি যে ট্রেনটিতে যাওয়ার জন্য সিলেক্ট করছিলেন, সেখানে কয়টি সিট খালি আছে, আর কয়টি বরাদ্দ হয়ে গেছে তার একটা মেনু দেখাবে

এখানে যে সিটগুলো কালো রং দ্বারা বরাদ্দ সেগুলো কাটা হয়ে গেছে। আর যে সিটগুলো সাদা সেগুলো এখনো কাটা হয়নি। আপনি খালি থাকার মধ্যে যে সিটটিকে সিলেক্ট করতে চান ঐ সিটটির উপর ক্লিক করুন।

ক্লিক করার পর ঐ সিটটির রং সবুজ হয়ে যাবে এবং নিচে দেওয়া ছবির মতো হবে। সিটটি সবুজ হয়ে গেলে বুঝবেন আপনার সিট সিলেক্ট হয়ে গেছে।

সিট সিলেক্ট হওয়ার পর নিচের দিকে যাবেন যেখানে Continue purches নামে একটা অপশন আছে। ঐ অপশনে ক্লিক করবেন। এই অপশনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে আরও একটি পেজ আসবে। আপনি সেই পেজের একেবারে নিচের দিকে চলে যাবেন।

সেখানে bKash নামক একটি অপশন আছে। আপনি bKash এর উপর ক্লিক করবেন। bKash এ ক্লিক করার পর নিচে থাকা confirm purcese এ ক্লিক করবেন। তারপর আপনার সামনে একটি পেজ আসবে।

এখানে আপনার বিকাশ নাম্বার চাইবে। আপনার যেই নাম্বারে বিকাশ একাউন্ট খোলা আছে, সেই নাম্বারটি এখানে বসিয়ে দিবেন। bKash number বসানোর পর নিচে confirm নামক একটি অপশন আছে সেখানে ক্লিক করবেন।

ক্লিক  করার পর আর ও একটা পেজ আসবে। সেখানে ভেরিফিকেশন কোড চাইবে, যেটা ইতিপূর্বে আপনার সিমে চলে আসবে। তারপর সেই কোডটি লিখে দিবেন। লিখে দেওয়ার পর নিচের Confirm অপশনে ক্লিক করবেন।

Confirm অপশনে ক্লিক করার পর আপনার কাছে আপনার বিকাশের পিন নাম্বার চাইবে। আপনি আপনার বিকাশের পিন নাম্বার দিয়ে নিচে থাকা Confirm অপশনে ক্লিক করে দিবেন। ক্লিক করার পর একটি পেজ আসলে বুঝবেন আপনার টিকেট সম্পূর্ণভাবে কাটা শেষ হয়েছে।

এই পেজের শেষে দেখুন লেখা আছে “print your ticket now”. সেখানে ক্লিক করার পর আপনার সামনে টিকিটটা চলে আসবে। এবার এটা নিয়ে কোনো কম্পিউটার দোকান থেকে প্রিন্ট করে নিলেই আপনার ট্রেনের টিকেট আপনার হাতে চলে আসবে।

আশা করি আপনি যদি পোস্টটি সম্পূর্ণ পড়ে থাকেন, তাহলে আপনার হাতে থাকা মোবাইল দিয়ে ট্রেনের টিকেট সহজেই কাটতে পারবেন।

আরও পড়ুন:

ভোটার আইডি কার্ড আসল নাকি নকল তা মোবাইল দিয়ে যাচাই করার সহজ উপায় 

মোবাইলে 5G এর সুবিধা ও অসুবিধা 

মোবাইল দিয়ে এনআইডি কার্ড সংশোধন করার নিয়ম 

মোবাইল দিয়ে এনআইডি কার্ড বের করার নিয়ম 

 

 

 

Leave a Comment