মোবাইল ফোন কতটুকু দূরে রেখে ঘুমাবেন ?

সারা দিন রাত মোবাইল ফোন (Mobile phone)  হাতে বা কাছে না থাকলে যেন মানুষের শান্তি লাগে না। তাই সারাদিন মোবাইল (Mobile) কোমরে, হাতে, পকেটে বা কাছে রাখার পর ও রাত্রে ঘুমানোর সময় মোবাইল ফোন (mobile phone) বালিশের নীচে, কম্বলের নীচে, বালিশের পাশে বা উপরে রেখে ঘুমায়।

অর্থাৎ মোবাইল ফোন (Mobile phone) এখন মানুষের জীবনের সাথে ওতোপ্রোতো ভাবে জড়িয়ে আছে। কিন্তু সারাক্ষণ মানুষের কাছে মোবাইল ফোন (Mobile phone) থাকলে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হতে পারে, এমনকি মৃত্যু ও হতে পারে। তাই মোবাইল ফোনের (Mobile phone) ব্যাবহার জানা দরকার।

তাছাড়া দিনে কাছে রাখার পর রাতে মোবাইল ফোন (Mobile phone) মাথার কাছে নিয়ে ঘুমানো একটি খারাপ অভ্যাস এবং ঝুঁকি পূর্ন। তাই ফোন কতটুকু দূরে রেখে ঘুমাবেন তা জেনে নেওয়া উচিত। আজকে আমরা জানব ঘুমানোর আগে মোবাইল ফোন (Mobile phone) কতটুকু দূরে রাখা প্রয়োজন।

মোবাইল ফোন (Mobile phone) কতটুকু দূরে রেখে ঘুমাবেন জেনে নিন।

1. মাথার কাছে বা শরীরে কাছে মোবাইল ফোন রেখে ঘুমাবেন না

মোবাইল কমপক্ষে ৩ ফুট, কারো মতে ৬ ফুট (১ মিটার বা ২ মিটার) দূরে রাখবেন। চীন ও আমেরিকার দুটি গবেষণায় গবেষকরা দেখিয়েছেন, মোবাইল ফোনের সার্বক্ষণিক সঙ্গ, বিশেষ করে রাতে ঘুমানোর সময় শরীরের কাছাকাছি ফোন রাখা অত্যন্ত বিপদজনক।

এমনকি এই অভ্যাস প্রানঘাতি হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, মাথার কাছে মোবাইল ফোন রেখে ঘুমালে শরীরে রেডিয়েশনের প্রভাবে প্রান কোষের বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হয়। ফলে নানাবিধ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। 

অন্য এক গবেষণায় দেখা যায়, যারা মাথার কাছে ফোন রেখে ঘুমায় তাদের আয়ু কমে যায়। তার কারণ মোবাইলের রেডিয়েশন।

2. রাতে ঘুমানোর সময় মোবাইলে অ্যালার্ন সেট না করা 

যদি মোবাইল ফোনে এলার্ম সেট করতে চান, তাহলে এয়ারপ্লেন মুডে রাখুন। কারণ, ফোনের রেডিয়েশন সরাসরি শরীরে প্রভাব ফেলতে পারে।

অ্যালার্ন সেট করা থেকে শুরু করে যতক্ষণ পর্যন্ত বন্ধ না করা হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত ফোনে ট্রান্সমিশন হতে থাকে। অর্থাৎ মোবাইল থেকে অদৃশ্য তরঙ্গ বের হতে থাকে, যার প্রভাবে শরীর এবং মাথার ক্ষতি হয়।

আবার যদি ফোনে চার্জ কম থাকে বা চার্জ দিয়ে ঘুমিয়ে থাকে তাহলে তো আরো বিপদজনক। মোবাইলে চার্জ দিলেও খাটে রেখে দেবেন না। শরীরের থেকে দূরে রাখুন। 

3. রাতে অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহার থেকে দূরে থাকুন

রাতে অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যাবহার করলে নেশা হয়ে যেতে পারে। যে কারণে ঘুমনোর সময় কম পাওয়া যায়। তাই শুয়ার সময় মোবাইল ফোন খাটের কাছে রাখবেন না। এতে আপনার ফোনের প্রতি আসক্তি কমে যাবে।

4. মোবাইল ফোনে গান শুনতে শুনতে ঘুমাবেন না

বহু লোক আছে, যারা মোবাইল ফোনে গান শুনতে শুনতে ঘুমিয়ে যান। আবার অনেকে আছে ঘুমানোর আগে মোবাইল ফোনের সাথে হেডফোন লাগিয়ে তা কানে দিয়ে গান শুনতে থাকে। যা মস্তিষ্কের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই ঘুমানোর ১০ মিনিট পূর্বে মোবাইল ফোন বন্ধ করে নিজের কাছে না রেখে টেবিল বা অন্য কিছুর উপর রেখে দিয়ে ঘুমিয়ে পড়বেন।

5.  ঘুমানোর আগে অন্ধকারে মোবাইল ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকুন

যুক্তরাষ্ট্রের সানফ্রান্সিসকো ভিত্তিক মিডিয়া প্রতিষ্ঠান গিগাতম প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্মার্টফোনের স্কিন থেকে নির্গত কৃত্রিম নীল আলো মানুষের ঘুম নষ্ট করে ও স্বাস্থ্যের  উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

রাত্রের অন্ধকারে মোবাইল ফোনের স্কিনের আলো চোখের রেটিনার জন্য ক্ষতিকর। ফোনের এই আলো ম্যাসেজ অথবা ফোন আসার খবর জানিয়ে দেয় মস্তিষ্ককে।

আমাদের শরীরে ঘুম আসার জন্য প্রয়োজনীয় রাসায়নিক হচ্ছে মেলাটোনিন। এছাড়া ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগ হওয়া প্রতিরোধ করে এই মেলাটোনিন। কিন্তু মোবাইলের এই আলো ঘুমের জন্য প্রয়োজনীয় রাসায়নিক নি:সরন হতে বাধা দেয়।

চক্ষু বিশেষজ্ঞদের মতে, মোবাইল থেকে নির্গত আলোর কারনে, চোখের রেটিনার উপর অতিরিক্ত চাপ পড়ে। ফলে চোখের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

তাই ঘুমানোর আধা ঘণ্টা আগে মোবাইল ফোন না দেখে শোয়ার স্থান থেকে একটু দূরে রেখে ঘুমাবেন।

6. ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রাখা

ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে মোবাইলের ইন্টারনেট বা ওয়াইফাই সংযোগ বন্ধ করতে হবে। ফোনে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে কিছুক্ষন পর পর হয়তো নোটিফিকেশন আসতে পারে কিংবা কল আসতে পারে। এতে আপনার ঘুমের সমস্যা হতে পারে। তাই মোবাইল ফোনের ইন্টারনেট সংযোগ বা ওয়াইফাই সংযোগ বন্ধ করে ঘুমাতে যাবেন।

  7. মোবাইলের ব্যাটারি থেকে নির্গত গ্যাস 

গবেষকরা বলছেন, মোবাইল ফোনে বেশীর ভাগ ব্যাবহৃত হয় লিথিয়াম আয়রন ব্যাটারি। আর এই লিথিয়াম আয়রন ব্যাটারি থেকে স্বাভাবিক অবস্থায় প্রায় ১০০টি গ্যাস নির্গত হয়। এই সমস্ত গ্যাসের মধ্যে রয়েছে বিষাক্ত কার্বন মনোক্সাইড এর মতো গ্যাস। যা মানব শরীরের জন্য অত্যন্ত বিপদজনক। এই গ্যাসগুলো মানব শরীরে প্রবেশ করলে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই ঘুমানোর সময় মোবাইলটি শোয়ার স্হান থেকে দূরে যে কোন নিরাপদ জায়গায় রাখতে হবে।

উপসংহারে বলা যায়, রাত্রে ঘুমানোর আগে মোবাইল ফোন শুয়ার স্হান থেকে নিরাপদ দূরত্বে অর্থাৎ কমপক্ষে ৩ ফুট বা ১ মিটার দূরে রেখে ঘুমানো ভালো। এতে দূর্ঘটনা ও শারিরীক সমস্যাসহ নানাবিধ অসুবিধা থেকে মুক্ত থাকা যায়। তাছাড়া মোবাইল ফোন কাছে রেখে ঘুমানো সবচেয়ে খারাপ অভ্যাস।এই অভ্যাসটি অবশ্যই দূর করতে হবে।

আরও পড়ুনঃ

ঘুমানোর সময় মোবাইল চার্জে না রাখার পরামর্শ অ্যাপলের

ভবিষ্যতে স্মার্টফোনের ব্যাটারি পরিবর্তন করা যাবে 

পুরুষের তুলনায় স্মার্টফোন ব্যাবহার নারীরা এগিয়ে 

এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোনের জন্য কয়েকটি ফ্রি অ্যাপস