মোবাইল হ্যাক হয়েছে কিনা জানার কয়েকটি উপায়

মোবাইল মানুষের জীবনে যেমন উপকারী, তেমনি ক্ষতিকরও। মোবাইলের ক্ষতিকর দিকের মধ্যে প্রধান বিষয় হলো মোবাইল হ্যাক হওয়া। মোবাইল হ্যাক হলে মোবাইলে থাকা সব তথ্য চলে যেতে পারে হ্যাকারের কাছে, এমনকি মোবাইলের নিয়ন্ত্রণ ও চলে যায় হ্যাকারের কাছে।

কিন্তু মোবাইল হ্যাক হয়েছে কিনা অনেকে তা জানে না বা বুঝতে পারে না। আর মোবাইল হ্যাক হয়েছে কিনা তা জানার কয়েকটি উপায় আছে। যেমন – ফোনের লক খুলতে না পারা, ফোল্ডার বা অ্যাপস লক হয়ে যাওয়া, ফোল্ডার বা অ্যাপস কাজ না করা, ফোন হ্যাং হওয়া, ফোনের পর্দার উপরে সবুজ বিন্দু দেখা যাওয়া, ফোন অল্প সময়ে গরম হয়ে যাওয়া, ফোন খুললেই বিজ্ঞাপন দেখতে পাওয়া ইত্যাদি।

মোবাইল হ্যাক হয়েছে কিনা তা জানার কয়েকটি উপায় নিচ দেওয়া হলো-

1. মোবাইল ফোন আপনা আপনি অন – অফ হওয়া

যদি আপনার মোবাইল ফোন অটোমেটিক ভাবে অন হয় বা অফ হয় তাহলে বুঝতে হবে ফোনটি হ্যাকিং এর শিকার হয়েছে। এবং আপনার ফোন অন্য কোনো হ্যাকার নিয়ন্ত্রণ করছে।

2. কোনো কারন ছাড়া ফোন গরম হয়ে যাওয়া

অনেক সময় দেখা যায় মোবাইল না চালিয়ে বন্ধ করে রাখলে অর্থাৎ কল করা , ভিডিও দেখা , ম্যাসেজ লেখা, ইত্যাদি কোনো কাজ না করলে ও মোবাইল গরম হয়ে যায়। তার কারণ মোবাইল ফোন হ্যাকার দ্বারা আক্রান্ত।

আপনার মোবাইলের ব্যাকগ্রাউন্ডে অ্যাপগুলো ব্যাবহার করে ফোন থেকে তথ্য চুরি করে নিচ্ছে, যার ফলে মোবাইলে কোনো কাজ ছাড়াই ফোন গরম হয়ে যায়।

3. নতুন অজানা অ্যাপ দেখা

অনেক সময় অ্যাপ ডাউনলোড না করলে ও কিছু নতুন অ্যাপ মোবাইলে দেখা যায়। যখনি আপনার মোবাইলে নতুন অ্যাপ দেখতে পাবেন তখন বুঝে নিতে হবে আপনার মোবাইল হ্যাকিং এর শিকার হয়েছে।

4. মোবাইলের পর্দায় সবুজ বিন্দু দেখা দিলে

মাঝে মাঝে মোবাইলের পর্দার উপরে ডান দিকে সবুজ বিন্দু দেখা দেয়। সবুজ বিন্দু দেখলেই বুঝতে হবে ফোনটি হ্যাকিং এর সম্ভাবনা আছে। তাই দেরি না করে সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। তবে অনেক সময় কল করার সময় মোবাইলে সবুজ বিন্দু দেখা দিতে পারে।

5. অ্যাপ কাজ না করলে

নতুন অ্যাপ ডাউন লোড করার পর আপনি যদি দেখেন, আপনার মোবাইলে পুরাতন কিছু অ্যাপ কাজ না করে বা হ্যাং হয়ে যায় তাহলে মোবাইলটি Malware দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে।

6. দ্রুত ব্যাটারির চার্জ শেষ হওয়া

মোবাইলের ব্যাটারি স্বাভাবিক ভাবে নষ্ট হলে ধীরে ধীরে অকেজো হয়ে যায়। কিন্তু ব্যাটারির চার্জ যদি হঠাৎ করে দ্রুত শেষ হতে থাকে তাহলে মোবাইল হ্যাকিং হওয়ার সম্ভাবনা আছে। মোবাইলে যদি স্পাইওয়্যার অ্যাপ ঢুকে, তাহলে অ্যাপগুলো ব্যাকগ্রাউন্ডে কাজ করে আপনার তথ্য চুরি করে এবং মোবাইলের চার্জ দ্রুত শেষ করে।

7. হঠাৎ মোবাইল ফোন স্লো কাজ করলে

মোবাইল ফোন পুরাতন হলে কিংবা রেম কম হলে ফোন স্লো কাজ করে। আবার অ্যাপ বেশি ইন্সটল করলে ও মোবাইল স্লো কাজ করে। এছাড়া মোবাইল ফোন স্লো কাজ করলে বুঝতে হবে ফোনটি Malware দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে। malware দ্বারা আক্রান্ত অ্যাপগুলো ফোনের ডাটা অন্যত্র স্থানান্তর করে বিধায় অ্যাপগুলো স্লো হয়ে যায়।

8. অজানা লোকের ম্যাসেজ –  মোবাইল ফোনে

যদি আপনি চিনেন না এমন লোক থেকে ম্যাসেজ আসে। কিংবা আপনার মোবাইল থেকে আপনা আপনি  অন্য নাম্বারে উল্টা পাল্টা ম্যাসেজ যায়, তাহলে বুঝতে হবে আপনার মোবাইল হ্যাকিং এর শিকার হয়েছে। সাধারণত হ্যাকাররা এই সব কাজ করে থাকে স্বার্থের জন্য।

9. ফোন বন্ধ কিংবা লক না হওয়া –

আমরা অনেক সময় দেখি ফোন লক করতে চাই। কিন্তু মোবাইল ফোন লক হয় না। আবার যদি ফোন বন্ধ করতে চাই ফোন বন্ধ হয় না। এর কারণ হলো মোবাইল ফোন হ্যাক হওয়া। মোবাইল ফোন যখন হ্যাক হয়, তখন এর কন্ট্রোল হ্যাকারের হাতে চলে যায়। ফলে মোবাইল ফোন নিয়ন্ত্রণ করে হ্যাকার। আর হ্যাকার যা ইচ্ছে তা করতে পারে।

10. কল করলে প্রতি ধ্বনি হওয়া-

ফোন করে কারো সাথে কথা বলার সময় যদি কথা প্রতিধ্বনি হয়, বার বার একই কথা শুনা যায়, অথবা কথা গুলো অস্পষ্ট শুনা যায়, তাহলে বুঝতে হবে আপনার মোবাইলে কেউ আড়ি পেতেছে। অনেক সময় মোবাইল কোম্পানি গ্রাহকের কলিং সিস্টেম পরীক্ষার জন্য এমন করে থাকে। তবে তা সীমিত সময়ের জন্য। দীর্ঘ সময় এমন করলে বুঝতে হবে আপনার ফোনটি হ্যাকিং হয়েছে।

11. ইন্টারনেটের ডাটা বেশি খরচ হলে –

ইন্টারনেট ডাটা ক্রয়ের পর দেখা যায় খুব দ্রুত ডাটা খরচ হচ্ছে। তখন আপনি ডাটা ইউজেজ বাই অ্যাপ্লিকেশন অপশনে গিয়ে দেখুন কোন অ্যাপে কি পরিমাণ ডাটা কাটছে। যদি দেখেন আপনার ডাউনলোড করা কোন নতুন অ্যাপ বশি ডাটা কাটছে, তাহলে বুঝতে হবে এটি malware।তাহলে সাথে সাথে ডিলেট করে দিন।

12. মোবাইলে খুললেই বিজ্ঞাপন দেখতে পাওয়া-

মোবাইলে নেট ব্রাউজিং করলে দেখা যায় সম্পূর্ণ স্কিনে বিজ্ঞাপন দেখায়, আবার অনেক সময় লটারি বা লোভনীয় বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখায়। তাহলে বুঝতে হবে আপনার মোবাইলে হ্যাকাররা ফাঁদ পেতে রাখছে। আপনি এই সকল বিজ্ঞাপনে ক্লিক করলে আপনার মোবাইলের যাবতীয় তথ্য হ্যাকারদের কাছে চলে যাবে।

13.মোবাইল থেকে আকর্ষিক কোনো কিছু ডিলেট হয়ে যাওয়া –

কোনো কারণ ছাড়া মোবাইল থেকে কোনো কিছু ডিলেট হয়ে যাওয়া। যেমন – ছবি, অ্যাপ, ভিডিও, ম্যাসেজ ইত্যাদি। তাহলে বুঝতে হবে ফোনটি হ্যাকিং এর শিকার হয়েছে।

14. স্প্যাম মেইল আসা বা মেইল যাওয়া-

মোবাইলে ঘন ঘন স্প্যাম মেইল আসা ও যাওয়া

ঘন ঘন স্প্যাম মেইল আসা কিংবা মেইল সেন্ড করলে স্প্যাম এ স্থান পাওয়া হ্যাকিং এর লক্ষন। তার কারণ গুগল কখনো অপরিচিত কোনো সার্ভার থেকে আসা বা যাওয়া সাপোর্ট করে না। কিন্তু হ্যাকারগন বেশির ভাগ অপরিচিত সার্ভার গুলো ব্যাবহার করে।

সবশেষে আমরা বলতে পারি, যদি দেখেন আপনার মোবাইলে উল্লখিত সমস্যা দেখা যায়, তাহলে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যাবস্হা নিন যাতে হ্যাকারগন আপনার কোনো ক্ষতি করতে না পারে। এছাড়াও হ্যাকিং এর আরও অনেক লক্ষ্মণ থাকতে পারে। যা আপনার

আরও পড়ুন :

ক্রিকেট খেলা ২০২৩ মোবাইলে দেখার উপায় 

ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করার সহজ নিয়ম 

আসল ভিটমেট ডাউনলোড করবো কিভাবে 

জিমেইল পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে কি করবো