রাতে মোবাইল ফোন ব্যবহারের ক্ষতিকর দিক গুলো জেনে নিন এখনি!

বর্তমান সময়ের সর্বাধিক ব্যবহ্ত প্রযুক্তি হলো মোবাইল ফোন। এই মোবাইল ফোন ছাড়া জেন একটি মূহুর্তও কল্পনা করা যায় না। যোগাযোগ থেকে শুরু করে ব্যবসা-বানিজ্য সব কিছুই ওতোপ্রোতো ভাবে এই মোবাইল ফোনের সাথে জড়িত।

এই মোবাইল ফোনের পরিমিত ব্যবহার আমাদের জন্য আশীর্বাদ হলেও এর মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে আমাদের ননা ধরনের শারীরিক সমস্যা হতে পারে। অর্থাৎ তখন এটি আমাদের জন্য আশীর্বাদ এর পরিবর্তে অভিশাপ হয়ে দাড়াবে।

রাতে অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহার করলে মোবাইল ফোনের আলোয় চোখ অন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

আমাদের মধ্যে অনেকই আছে যারা রাতে ঘুমানোর পরিবর্তে রুমের লাইট অপ করে ঘন্টার পর ঘন্টা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে। এতে ঘুমের তো ১২ টা বাজেই সেই সাথে স্বাস্থ্যেরও অবনতি ঘটতে থাকে।

ছোটখাটো বিষয় গুলোর সাথেই আমাদের স্বাস্থ্য জড়িত, অথচ আমরা সেই বিষয় গুলোকেই অবহেলা করি। ফলে আমাদের শারীরিক স্বাস্থ্য দিন দিন অবনতি হতে থাকে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অন্ধকারে স্মার্টফোন ব্যবহারে স্মার্টফোনের আলো অন্ধত্ব ডেকে আনতে পারে। এটি শুধু অন্ধত্বই ডেকে আনে না বরং এর ফলে চোখের পাশাপাশি আমাদের দেহ ও মনেও বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হচ্ছে। সেই সাথে মস্তিষ্কের উপর এর মারাত্মক প্রভাব পড়ছে।

যার ফলে শারীরিক নানা অঙ্গপ্রত্যঙ্গ গুলোও ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। শিশুদের ক্ষেত্রে দৈহিক বৃদ্ধি ব্যহত হচ্ছে, ঠিক মতো মেধার বিকার ঘটে না, দিন দিন চেহারা ফ্যাকাসে হয়ে যায় আরও নানা ধরনের শারীরিক বিকলাঙ্গ দেখা দিচ্ছে।

অনেকের মনেই প্রশ্ন আসতে পারে, মোবাইল ফোনের আলো কিভাবে আমাদের ক্ষতি করে?

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, মোবাইল ফোনের স্কিন থেকে এক ধরনের উজ্জ্বল নিল আলো নির্গত হয়, যার প্রভাবে দিনের বেলা প্রখর রোদ্রে দাড়িয়েও আমরা মোবাইলের স্কিন স্পষ্ট ভাবে দেখতে পাই।

রাতের বেলা এই আলোর প্রভাবে আমাদের মস্তিষ্ক ধাঁধায় পড়ে যায় এবং একে দিনের আলো হিসেবে ধরে নেয়।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম,

আনন্দ বাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোবাইল থেকে নির্গত হওয়া আলোর মধ্যে ৭ রঙের রশ্মি রয়েছে।

তবে এই রশ্মি গুলোর মধ্যে এই নিল রঙের রশ্মিটি বেশি শক্তিশালি। তাই এটি অন্যান্য রশ্মির তুলনায় অধিক ক্ষতি সাধন করে।

চিকিৎসকদের মতো, মোবাইল থেকে নির্গত হওয়া নিল আলো শরীরের মেলাটোনিন নামের হরমোন উৎপাদনে বিরূপ প্রভাব ফেলে। এই মেলাটোনিন মূলত একধরনের হরমোন, যেটি রাতের বেলায় নিঃসৃত হয়ে শরীরকে ঘুরিয়ে পড়ার নির্দেশ দেয়।

কিন্তুু আমরা যখন রুমের লাইট নিভিয়ে দীর্ঘক্ষন মোবাইল ব্যবহার করি তখন মোবাইলের নিল আলো তীক্ষ্ণ ভাবে নিঃসৃত হয়। এর প্রভাবে মেলাটোনিন হরমোন উৎপাদন ব্যাহত হয় বলে আমাদের স্বাভাবিক ঘুম ব্যাহত হয়।

অনেকেই হাত থেকে মোবাইল রেখে দেওয়া সত্ত্বেও আর ঘুমাতে পারে না। রাতে ভালো করে ঘুম না যাওয়ার কারনে সারাদিন তাকে একধরনের মানসিক অশান্তিতে ভুগতে হয়। সেই সাথে মস্তিষ্ক এবং  তার দেহ ও মনও প্রভাবিত হয়।

তাই আমাদের উচিৎ রাতে দীর্ঘ সময় অবধি মোবাইল ব্যবহার না করা।

 

রাতে অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহার শুধু আমাদের ঘুমেরই না বরং আর বিভিন্ন ধরনের শারীরিক ক্ষতি সাধন করে।

চলুন দেখা যাক, রাতে স্মার্টফোন ব্যবহারের ফলে আমাদের কি কি ক্ষতি সাধন হয়?

1. মস্তিষ্কের উপর বিরূপ প্রভাব বিস্তার

ফোনের স্কিনের দিকে দীর্ঘক্ষন তাকিয়ে থাকলে তা আমাদের মস্তিষ্কের উপর বিরূপ প্রভাব বিস্তার করে।

এর ফলে মানুষ দিন দিন মেধাশূন্য হয়ে পড়ে, নতুন কিছু শেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে, চিন্তা করার মতো বোধ আর থাকে নাহ, পড়াশোনায় অমনোযোগী হয়ে পড়ে। এর ফলে দিন দিন দেশ নিরক্ষর জাতিতে পরিণত হবে।

2. চোখের সমস্যা হওয়া

মোবাইল ব্যবহারের সময় অধিক সময় মোবাইল স্কিনের দিকে তাকানোর ফলে মোবাইল থেকে নির্গত হওয়া রেডিয়েশন আমাদের চোখে প্রবেশ করে।ফলে দৃষ্টি শক্তি কমতে থাকে।

এছাড়াও আরও নানা ভাবে চোখের ক্ষতি হতে পারে। যেমনঃ চোখে শুষ্ক বোধ করা, চোখ দিয়ে পানি পড়া, চোখে চুলকানি হওয়া, চোখে ঝাপসা দেখা, এমনকি চোখের রেটিনা ক্ষতিগ্রস্থ্য হয়ে দৃষ্টি শক্তি নষ্ট হওয়ার আশঙ্কাও রয়েছে বলেও কিছু প্রমান পাওয়া গেছে।

3. ঘুম কম হওয়ায় শারীরিক সমস্যা হওয়া

রাতে মোবাইল ফোন থেকে তীক্ষ্ণ ভাবে নিল আলো ছড়িয়ে মেলাটোনিন হরমোন উৎপাদনে ব্যাঘাত ঘটায় বলে ঘুম কম হয় বা কিছু কিছু ক্ষেত্রে ঘুমই হয় না।

রাতে ঠিকমতো ঘুম না হলে তা পরদিন আমাদের স্মৃতিশক্তিকে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।

রাতে দীর্ঘক্ষন আলোর সংস্পর্শে থাকা এবং পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়ার সাথে স্তন ও প্রোস্টেট ক্যান্সারের যোগসূত্র রয়েছে।

4. স্থুলতার ঝুঁকি বেড়ে যাওয়া

স্মার্টফোন থেকে নির্গত হওয়া রেডিয়েশন আমাদের দেহের হরমোনের কাজেও বিরূপ ব্যাঘাত ঘটাতে পারে, ফলে স্থুলতার ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে।

5. স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়া

রাতে অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহারের ফলে মানুষের চেহারা দিন দিন ফ্যাকাশে হয়ে যায়। মানুষের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটতে থাকে।

শেষ কথা,

কোনো কিছুরই অতিরিক্ত ভালো নয়। মোবাইল আমাদের জন্য আশীর্বাদ হলেও এর মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার আমাদের জন্য অভিশাপ বয়ে আনবে।

রাতে মাত্রাতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহারের ফলে শারীরিক নানা সমস্যা যেমন, মাথা ব্যাথা,ঘাড় ব্যাথা, চোখের সমস্যা, মেজাজ খিটখিটে হওয়া। এছাড়াও এর ফলে হ্রদয় রোগ ও উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকিও রয়েছে।

তাই আমাদেরকে অবশ্যই রাতে কম মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে হবে এবং বেশি করে ঘুমাতে হবে।

তাহলে আমরা আমাদের পরেরদিনের কাজ গুলো সঠিকভাবে করতে পারবো এবং  আমরা শারীরিক ও মানসিক ভাবে সুস্থ থাকবো।