হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ব্যাকআপ করার নিয়ম

হোয়াটসঅ্যাপ হলো একটি বিনামূল্যের, ক্রস-প্ল্যাটফর্ম, ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং এবং ভয়েস-ওভার-আইপি (VoIP) পরিষেবা। এটি মেটা-এর মালিকানাধীন এবং বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে জনপ্রিয় মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনগুলির মধ্যে একটি।
হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ব্যাকআপ করার দুটি সহজ নিয়ম রয়েছে:

Google Drive ব্যবহার করে:

 

প্রয়োজনীয় উপাদান :
(।) একটি Google অ্যাকাউন্ট।
(।।) স্থিতিশীল ইন্টারনেট সংযোগ (Wi-Fi  ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়)

অনুকরনীয় ধাপসমূহ:

1. WhatsApp একাউন্ট খুলুন এবং “Settings“-এ যান।

2. “Chats” এবং তারপর “Chat Backup”-এ ট্যাপ করুন।
3. “Back Up to Google Drive”-এ ট্যাপ করুন।
4. আপনার পছন্দের Google অ্যাকাউন্টটি নির্বাচন করুন।
“Back Up Frequency” নির্বাচন করুন:
*Daily: প্রতিদিন ব্যাকআপ নেওয়া হবে।
*Weekly: প্রতি সপ্তাহে ব্যাকআপ নেওয়া হবে।
*Monthly: প্রতি মাসে ব্যাকআপ নেওয়া হবে।
Only when I tap “Back Up”: আপনি যখন ম্যানুয়ালি ব্যাকআপ নিতে চান তখনই এটি ব্যবহার করুন।
Include Videos” বিকল্পটি চেক করুন যদি আপনি ভিডিওগুলিও ব্যাকআপ করতে চান।
“Back Up”-এ ট্যাপ করুন।

 iCloud ব্যবহার করে (শুধুমাত্র iOS-এর জন্য):

প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র:
1.iCloud অ্যাকাউন্ট
স্থিতিশীল ইন্টারনেট সংযোগ (Wi-Fi ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হয়)

ধাপ:

1. হোয়াটসঅ্যাপ খুলুন এবং “Settings”-এ যান।

2. “Chats” এবং তারপর “Chat Backup”-এ ট্যাপ করুন।
3.”Back Up Now”-এ ট্যাপ করুন।
বিকল্প ব্যাকআপ পদ্ধতি:
*Local Backup: আপনি আপনার ফোনের স্টোরেজে ম্যানুয়ালি চ্যাট ব্যাকআপ করতে পারেন।
*Email Backup: আপনি নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের সাথে আপনার চ্যাট ইতিহাস ইমেল করতে পারেন।

দ্রষ্টব্য:

Google Drive ব্যবহার করে ব্যাকআপ নেওয়া আপনার চ্যাট ইতিহাস, ছবি, ভিডিও এবং ভয়েস বার্তাগুলি সংরক্ষণ করে।
iCloud ব্যবহার করে ব্যাকআপ নেওয়া শুধুমাত্র iOS ডিভাইসে কাজ করে।
আপনার ব্যাকআপ নিয়মিত আপডেট করা গুরুত্বপূর্ণ যাতে আপনি কোনও ডেটা হারান না।
আপনি যদি আপনার ফোন পরিবর্তন করেন, তাহলে আপনার নতুন ফোনে আপনার ব্যাকআপ পুনরুদ্ধার করতে পারবেন।
আশা করি এই তথ্যটি আপনাকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ব্যাকআপ করতে সাহায্য করবে!

আরও পড়ুন :

মোবাইল ঘড়ির বৈশিষ্ট্য ও বর্তমান দাম 

মোবাইল ফোনের উপকারীতা

বিশ্বের সেরা ১০ টি মোবাইল ফোনের ব্রান্ড