নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার সঠিক পদ্ধতি

আপনি যদি একজন বাংলাদেশী নাগরিক এবং বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার অবশ্যই ভোটার আইডি কার্ড থাকা উচিত।

ভোটার আইডি কার্ড হল একটি বৈধ পরিচয় প্রমাণ যা আপনি অনেক সরকারি এবং বেসরকারি কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

উদাহরণস্বরূপ, আপনি এটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য, সরকারি পরিষেবা গ্রহণের জন্য, বা এমনকি বিমানে চড়ার জন্য ব্যবহার করতে পারেন।

আজকে আমরা জানব কিভাবে আপনি নতুন Votar ID কার্ডের জন্য আবেদন করবেনঃ

১) অনলাইনে আবেদন করুন

প্রথমে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে গিয়ে “ভোটার নিবন্ধন” অপশনে ক্লিক করুন।

তারপর “নতুন ভোটার নিবন্ধন” অপশনে ক্লিক করে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে আবেদন করুন।

আবেদন করার পর একটি আবেদন নম্বর পাবেন।

২) আবেদনপত্র প্রিন্ট করুন

আবেদন করার পর আপনার আবেদনপত্র প্রিন্ট করে নিন।

আবেদনপত্রের ৩৫ নং ক্রমিকে ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য/ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর সিল ও স্বাক্ষর, ৩৭ ক্রমিকে পরিবারের সদস্যের স্বাক্ষর এবং ৪০,৪১ ও ৪২ নং ক্রমিকে চেয়ারম্যান/মেয়র এর নাম, জাতীয় পরিচয় পত্র নং উল্লেখপূর্বক সীল এবং স্বাক্ষরীত করে আপনার উপজেলার নির্বাচন অফিসে নিয়ে জমা দিতে হবে।

৩) প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিন

আপনার উপজেলা নির্বাচন অফিসে আবেদনপত্র জমা দেওয়ার সময় নিম্নলিখিত কাগজপত্র জমা দিতে হবে:

  • অনলাইন আবেদনপত্রের প্রিন্ট কপি
  • জন্ম সনদের ফটোকপি
  • পিতা-মাতার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি
  • চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রত্যায়ন পত্র
  • শিক্ষিত হলে এসএসসি সনদসহ শিক্ষাগত সনদের সত্যায়িত ফটোকপি
  • রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করা হলে তার ফটোকপি
  • বিদ্যুৎ বিল (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • জমির কাগজ (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে)
  • ভোটার হই নাই মর্মে অঙ্গিকার নামা
  • বাড়ির টেক্স পরিশোধীত রশিদের ফটোকপি
  • বিবাহিত হলে স্বামী/স্ত্রী জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি ও বিবাহিত সনদ পত্রের ফটোকপি
  • নাগরিক সনদ

৪) বায়োমেট্রিক তথ্য দিয়ে দিন

আপনার উপজেলা নির্বাচন অফিসে আবেদনপত্র ও কাগজপত্র জমা দেওয়ার পর আপনার বায়োমেট্রিক তথ্য (ছবি, আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিশ) নেওয়া হবে।

৫) ভোটার আইডি বুজে নিন

আপনার বায়োমেট্রিক তথ্য নেওয়ার পর আপনার ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করা হবে।

ভোটার আইডি কার্ড তৈরি হয়ে গেলে আপনাকে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে তা সংগ্রহ করতে হবে।

উপসংহার

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার জন্য উপরে উল্লেখিত ধাপগুলি অনুসরণ করুন।

আবেদন করার সময় আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঠিকভাবে জমা দিন এবং বায়োমেট্রিক তথ্য সঠিকভাবে দিন। তাহলে আপনার ভোটার আইডি কার্ড দ্রুত তৈরি হয়ে যাবে।