মোবাইল ফোন ভালো রাখার উপায়!

মোবাইল ফোন হলো আধুনিক যোগাযোগের সর্বোত্তম উপায়। আমরা প্রত্যেকে কম বেশি মোবাইল ফোন ব্যাবহার করি। বর্তমানে মোবাইল ফোন আমাদের দৈনন্দিন জীবনের এক অপরিহার্য বন্ধু হয়ে উঠেছে। মোবাইল ফোন যে শুধু যোগাযোগের মাধ্যম তা মোটেই নয়। এটির মাধ্যমে বর্তমানে আমরা বিভিন্ন বিনোদন মূলক অনুষ্ঠান, গান, ছবি, নাটক ইত্যাদি দেখতে পারি।

কিন্তু দুর্ভাগ্য বশতঃ অনেক কারনেই আমাদের মোবাইল ফোন দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়। তাই আপনি যদি আপনার মোবাইল ফোন থেকে দীর্ঘ মেয়াদি সার্ভিস পেতে চান অর্থাৎ অনেক দিন মোবাইল ফোন ভালো রাখতে চান তাহলে আপনি কিছু টিপস অনুসরণ করতে পারেন, ফলে আপনার মোবাইলটি অনেক দিন পর্যন্ত ভালো থাকবে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আপনার মোবাইল ফোনটি কিভাবে ভালো রাখবেন।

1. ভালো স্কিন প্রটেক্টর এবং ফোন কেইস ব্যাবহার করা

ফোনের স্কিন প্রটেকশন নিয়ে আমাদের সবারই সতর্ক হওয়া প্রয়োজন। কারণ দুর্ঘটনা বশতঃ আপনার হাত থেকে মোবাইল ফোন পড়ে গেলে এর ডিসপ্লে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আর একটা মোবাইলের স্কিন নষ্ট হয়ে যাওয়া মানে পুরো মোবাইলটা নষ্ট হয়ে যাওয়া। তাই অবশ্যই স্কিন প্রটেকশন ব্যাবহার করতে হবে।

তবে বিভিন্ন ধরনের স্কিন প্রটেকশন রয়েছে। যাচাই করে ভালো স্কিন প্রটেকশন ব্যাবহার করবেন। ভালো স্কিন প্রটেকশন ব্যাবহার করলে হাত থেকে পড়ে গেলে ও আপনার ফোনটি ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। আপনার ফোনটি দীর্ঘ দিন ভালো থাকবে। একই সাথে মোবাইলের ব্যাকসাইডের জন্য ও একটা হাই কোয়ালিটির কেইস ইউজ করা জরুরি। এটি আপনার মোবাইলকে বাহ্যিক আঘাত থেকে রক্ষা করবে।

2. অতিরিক্ত গরম থেকে মোবাইল ফোন দূরে রাখুন

অতিরিক্ত তাপমাত্রা মোবাইলের জন্য ক্ষতিকর। মোবাইল অতিরিক্ত গরম হয়ে গেলে এর গতি কমে যায়। মোবাইল অনেক বেশি হ্যাং করে। তাই মোবাইলকে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখতে হবে।

মোবাইল ফোনের তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকলে এর জীবনকাল ও দীর্ঘস্হায়ী হবে এবং অনেক বেশি আউটপুট দিবে। তাই অবশ্যই মোবাইলের তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখতে হবে।

3. ফোনের ধুলাবালি পরিষ্কার করা

সর্বদা মোবাইল ফোনকে ধুলাবালি থেকে মুক্ত রাখতে চেষ্টা করবেন। যদি ও সর্বদায় পরিষ্কার করা সম্ভব নয়, তারপর ও চেষ্টা করবেন মোবাইলকে ধুলোবালি মুক্ত রাখতে। অনেক সময় মোবাইলের ক্যামেরায় ধুলোবালি জমা হওয়ার কারণে ঐ মোবাইল দিয়ে তোলা ছবি গুলো অস্পষ্ট হয়।

সাধারণত আমরা সবায় ছবি তুলি ও ভালো ছবি প্রত্যাশা করি। কিন্তু যদি ক্যামেরায় ধুলাবালি থাকে তাহলে ছবি ও ঘোলা উঠবে। এছাড়া অনেক সময় ধুলাবালি জমে গেলে আওয়াজ অনেক কম শোনা যায়। তাই অবশ্যই ফোনটি ধুলাবালি মুক্ত রাখবেন। এতে করে ফোন ব্যাবহার করতে ও ভালো লাগবে।

4. ব্যাটারির যত্ন নিন

মোবাইলের অন্য সব অংশের মতো ব্যাটারিও অত্যন্তগুরুত্বপূর্ণ। ব্যাটারি অতিরিক্ত চার্জ দেওয়া বা চার্জ দেওয়ার পরে ঘন ঘন খুলে আবার লাগানো কিংবা চার্জে রেখে মোবাইল দেখলে মোবাইলের ব্যাটারিতে সমস্যা দেখা দেয়।

যেমন – অনেক দ্রুত চার্জ হয় আবার অনেক দ্রুত চার্জ শেষ হয়। চার্জ হতে অনেক বেশি সময় নেয় এবং কখনো কখনো ব্যাটারি ফুলে যায়। আপনার মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখতে আপনি সবসময় চার্জ ১০% এর নীচে আসলে চার্জ দিবেন ও ফুল চার্জ হলে খুলবেন। এর ফলে মোবাইলের ব্যাটারি দীর্ঘ দিন ভালো থাকবে

6. অ্যাপস আপডেট করুন

দীর্ঘদিন একই Apps ব্যাবহারের ফলে অ্যাপসের সার্ভিস কিছুটা কমে যায়। অর্থাৎ এটি ধীরে ধীরে নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ে। তাই  অ্যাপসটি সক্রিয় ও চলমান রাখতে কিছু দিন পরপর আপডেট দিতে হবে।

এটা আপনাকে ফাস্ট এবং স্মুথ ইউজিং এক্সপেরিয়েন্স প্রদান করবে। সেই  সাথে আপনি অ্যাপসের লেটেস্ট ভার্সন গুলো ব্যাবহার করতে পারবেন।

6. অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকুন

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস মোবাইলে অতিরিক্ত জায়গা দখল করে। মেমোরির গতি কমিয়ে দেয়। অনেক সময় এর মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য চুরি হয়ে যায় এবং মানুষের Personal privacy নষ্ট হয়ে যায়।

এমনকি অনেকের মোবাইল হ্যাকিং এর স্বীকার হয়। এরফলে সমাজে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়।তাই অফিসিয়াল বা যে অ্যাপসগুলো খুব দরকার সেগুলো ছাড়া অন্য অ্যাপসগুলো ডিলেট করে দিবেন। এতে করে আপনার মোবাইল ভালো ও দীর্ঘদিন চলমান থাকবে।

7. ফোনে যথেষ্ট পরিমাণ স্পেস খালি রাখুন

মোবাইল ফোন ভালো রাখার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে কাজটি সেটা হলো আপনার ফোন মেমোরি এবং স্টোরেজ খালি রাখা। মোবাইলের স্পেস যত খালি থাকবে এর ডাটা তত দ্রুত রিড ও রাইট করতে পারবে। এর ডাটা এক্সেস ও তত বেশি ফাস্ট হবে।

তাই অবশ্যই চেষ্টা করবেন সবসময় এর স্টোরেজ খালি রাখার। এতে আপনার মোবাইল অনেক বেশি ভালো থাকবে। তবে মোবাইলের স্টোরেজ খালি রাখার জন্য অ্যাপস ব্যাবহার করতে পারেন।

8. মোবাইল ফোনের চার্জিং পোর্ট পরিষ্কার করুন

ফোনের চার্জিং পোর্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি চার্জিং পোর্ট ভালো না থাকে তবে আপনার ব্যাটারি চার্জ হবে না। আর চার্জিং পোর্ট একবার নষ্ট হয়ে গেলে এটা ফিক্স করা খুবই কষ্টকর ও অর্থ বহুল।

তাই সবসময় এটি পরিষ্কার রাখতে হবে। এতে করে চার্জিং পোর্ট ভালো থাকবে এবং আপনার মোবাইল দীর্ঘ সময় ভালো থাকবে।

9. ফোন  রিস্টার্ট দেওয়া

আমরা ফোন ব্যাবহার করার পর বন্ধ করে রাখলেও কখনো রিস্টার্ট দেই না। এমনকি সপ্তাহের পর সপ্তাহ, মাসের পর মাস গেলে ও রিস্টার্ট দেই না। আমাদের উচিত নিয়মিত মোবাইল রিস্টার্ট দেওয়া।

অন্তত নিয়মিত না হলেও দুই তিন দিন পরপর একবার রিস্টার্ট দেওয়া। এতে করে ফোনের গতি সক্রিয় থাকবে।

10. যত্ন সহকারে ফোন নাড়াচাড়া করুন

আমরা অনেকেই মোবাইল ব্যাবহার করার পর সোফায় বা বেডে ছুড়ে মারি। যদিও এতে ক্ষতিকর দিকগুলো আমাদের চোখে পড়ে না বা আমরা লক্ষ্য করি না। তবে অনেক ক্ষেত্রে এইভাবে ছুড়ে মারলে মোবাইলের ভিতরের পোর্টসগুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

মোবাইল ছুড়ে ফেলা থেকে দূরে থাকুন। এটা খুবই বাজে অভ্যাস। এটা আপনার মোবাইল ফোনের জন্য সুফল বয়ে আনবে না।

আপনি যদি উল্লিখিত টিপসগুলো ভালো ভাবে মেনে চলেন তাহলে আপনার মোবাইলের লাইফ দীর্ঘ কাল স্হায়ী থাকবে। আর আপনি যদি মনে করেন যে আমি বড়লোক, একটা মোবাইল নষ্ট হলেই বা কি? একটার পরিবর্তে ১০ টা নিবেন। তাহলে অন্য কথা।

আরও পড়ুন:

এখনি এই ৯টি অ্যাপস আপনার মোবাইল থেকে ডিলিট করুন 

মোবাইল ফোন দ্রুত চার্জ করার ৫টি উপায় 

মোবাইল ফোন রুট করা উচিত (সুবিধা ও অসুবিধা) 

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার উপায় 

 

 

Leave a Comment